বগউড প্রসেসিংয়ের সবচেয়ে দ্রুত ও সহজ পদ্ধতি

বগউড প্রসেসিংয়ের সবচেয়ে দ্রুত ও সহজ পদ্ধতি | সাধারণত ইট বা পাথরের সাথে বেঁধে পানিতে ডুবিয়ে রেখে বগ প্রসেস করা হয় এবং এতে সময় লাগে
Photo: Shamsun Arefin | The fastest and easiest method of bogwood processing

বগউড প্রসেসিংয়ের সবচেয়ে দ্রুত ও সহজ পদ্ধতি | সাধারণত ইট বা পাথরের সাথে বেঁধে পানিতে ডুবিয়ে রেখে বগ প্রসেস করা হয় এবং এতে সময় লাগে দীর্ঘদিন বা কয়েকমাস। আমি আজকে যে পদ্ধতির কথা বলবো সেই পদ্ধতিতে অনেক কম সময়ে (বড়জোর এক সপ্তাহ) বগ প্রসেস করা সম্ভব। চলুন স্টেপগুলো দেখে নেয়া যাক!

মূল লেখকের কথা: আগেভাগেই বলে রাখি এটা একান্তই আমার নিজস্ব পদ্ধতি (ইন্টারনেট বা অন্য কোথাও পাবেন না), ৪০ টার বেশী বগ/ড্রিফটউড আমি এইভাবে প্রসেস করেছি। প্রসেস করতে সবচে কম সময় লেগেছিল ১ ঘন্টা এবং সবচে বেশী সময় লেগেছিল ৪ দিন।

দ্রুত ও সহজ পদ্ধতিতে বগউড প্রসেসিং

  • সবার আগে বগ/ড্রিফটউড নির্বাচন করুন আপনার পছন্দের শেপ অনুযায়ী। প্রায় সব ধরনের বড় গাছের ডাল/শিকড় দিয়েই বগ বানানো যায় ডালটা যদি পাটকাঠির মত ভঙ্গুর ও হালকা না হয়।

  • বগটা কাঁচা নাকি শুকনা খেয়াল করুন। যদি ভিতরের অংশ সাদা দেখা যায় তাহলে সেই বগটা কাঁচা। যদি লালচে/কালচে বা ধূসর হয় তবে তা শুকনা। চেষ্টা করবেন কাঁচা ডাল নির্বাচন না করার, যদি তাড়াতাড়ি প্রসেস করতে চান।

  • ডালটি কাঁচা হলে একমাস রোদ-বৃষ্টিতে ফেলে রাখেন। রুমে রেখে দিলে লাভ নেই। ব্যালকনিতে রাখার চেয়ে ছাদে রাখা অধিক যুক্তিসংগত। সাধারণত কাঁচা বগ রোদে ফেলে রাখলে মাসখানেক পরেই শুকিয়ে যায়। ডালটি শুকনা হলে এই ধাপের প্রয়োজন নেই।

  • বাকল ফেলে দিন। শুকনা বগের বাকল অল্পতেই উঠে আসার কথা। চাকু বা হাত দিয়ে বাকলগুলো তুলে ফেলুন। এই কাজটা খুবই জরুরি।

  • এইবার বগের সাইজ অনুযায়ী বড়সড় পাতিল নিয়ে সিদ্ধ করার পালা। মায়ের অগ্নিদৃষ্টির সামনে পড়তে না চাইলে এই কাজ রাত ১২টার পরে করাই ভালো। টানা ৫-৬ ঘন্টা বয়েল করবেন। এরমধ্যে যতটুক পানি বাষ্প হয়ে উবে গেছে ওইটুক আবার ভরাট করে দিলে ভালো হয়। বগের সাইজ ও ধরন অনুযায়ী নির্ভর করে কয়দিন বয়েল করা লাগবে, তবে একটা বগে সর্বোচ্চ ৪ দিন সময় লেগেছিল আমার ক্ষেত্রে, প্রতিদিন ৬ ঘন্টা করে। সবচেয়ে কম সময় লেগেছিল এক ঘন্টা।

  • যখন দেখবেন বগটা ডুবে যাচ্ছে, বুঝবেন আর বয়েল করার দরকার নেই। বগটাকে একটা বালতি বা ড্রামে ডুবিয়ে রাখুন। ৩/৪ দিন পরে খেয়াল করুন ট্যানিন রিলিজ করছে কি না অর্থাৎ পানি লালচে হয়ে যাচ্ছে কি না। যদি না করে, তবে ট্যাংকে দিয়ে দিন। যদি ট্যানিন রিলিজ করে, পানিটা চেঞ্জ করে আবার ডুবিয়ে আরও ৩-৪ দিন পরে দেখেন। সাধারণত ডুবে যাওয়ার পর ট্যানিন ছাড়েনা আর। এইখানে বলে রাখি, ট্যানিন ছাড়লেও কিন্তু ট্যাংকে দেয়া যাবে, ট্যানিন শুধু দেখতেই খারাপ, এর কোনও নেগেটিভ এফেক্ট নাই ট্যাংকে অর্থাৎ মাছ বা প্ল্যান্টসের কোনও ক্ষতি হবে না। ব্র্যাকিশওয়াটার/ব্ল্যাকওয়াটার এবং বায়োটোপ একুয়াস্কেপে ইচ্ছাকৃতভাবে পানিকে ট্যানড করা হয়।

তো, এই হচ্ছে বগ প্রসেসের সবচেয়ে শর্টকাট পদ্ধতি। এই নিয়মে বগ প্রসেস করলে আপনারা সবচেয়ে কম সময়ে বগ প্রসেস করতে পারবেন। চার মাস/ছয় মাসে বগ প্রসেস করার দিন শেষ।

Post Reference

এই আর্টিকেলটি বাংলাদেশের অ্যাকুয়ারিয়াম রিলেটেড ফেসবুক গ্রুপ Bangladesh Aquarists থেকে সংগৃহীত। Shamsun Arefin এই আর্টিকেলটির মেধাস্বত্ব বহন করছেন। মূল আর্টিকেল পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

Reference:
Shamsun Arefin, Bangladesh Aquarists

Post a Comment

© QnABangla. All rights reserved. Premium By Raushan Design